কুষ্টিয়ায় ট্রাকের সঙ্গে অ্যাম্বুলেন্সের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত পাঁচজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। রোগী নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) দুপুর আড়াইটার দিকে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়কের লক্ষ্মীপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের বাড়ি নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার লক্ষ্মীপাশা গ্রামে।

নিহতরা হলেন- নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার লক্ষ্মীপাশা গ্রামের শফি উদ্দিন মোল্লার ছেলে টিপু সুলতান, আব্দুস সাত্তারের ছেলে মফিজ উদ্দিন, মফিজ উদ্দিনের স্ত্রী আরবী বেগম, তাদের ছেলে ইফাত এবং যশোর কোতোয়ালি থানার বিরামপুর এলাকার কাশেম আলী শেখের ছেলে আলী আহমদ। এতে গুরুতর আহত হয়েছেন কাশেম আলীর ছেলে ইনসান আলী।

পুলিশ জানায়, পাবনা মানসিক হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা শেষে এক নারী রোগীকে নিয়ে পরিবারের সদস্যরা অ্যাম্বুলেন্সে নড়াইল যাচ্ছিলেন। পথে বিত্তিপাড়া ও লক্ষ্মীপুর এলাকার এগারোমাইল ব্রিজের কাছে বিপরীত দিক থেকে আসা বিএডিসির একটি ট্রাকের সঙ্গে অ্যাম্বুলেন্সটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে অ্যাম্বুলেন্সের চালক মফিজ, তার সহযোগী টিপু ও রোগীসহ তার তিন স্বজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। এতে গুরুতর আহত হয়েছেন রোগীর স্বজন ইনসান আলী। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান রতন জানান, দুর্ঘটনায় অ্যাম্বুলেন্সটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।