রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালে পাঁচ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও ক্যান্সার আক্রান্ত মায়ের করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিতে ব্যর্থ হওয়া এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে মারধরের ঘটনায় আরও এক আনসার সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় আগে দুই আনসার সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ঘটনার প্রাথমিক সত্যতার ভিত্তিতে শনিবার বিকেলে নতুন করে আরও এক সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়। ওই তিন আনসার সদস্য হলেন- আফসার, বিশ্বজিত ও বিরাজ মল্লিক।

শনিবার রাতে ঢাকা মহানগর আনসার পূর্ব জোন পরিচালক (জোন কমান্ডার) মো. কামাল হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, মারধরের ঘটনার পর গণমাধ্যমে প্রকাশিত ছবি দেখে প্রথমে মুগদা হাসপাতালের দুজন আসনার সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়। আজ বিকেলে হাসপাতালের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করে আরেক সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। অর্থাৎ, ওই ঘটনায় আনসারের মোট তিন সদস্যকে প্রত্যাহার করা হলো।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় একটি তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি কাজ শুরু করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শুক্রবার (৩ জুলাই) মুগদা হাসপাতালে ক্যান্সার আক্রান্ত মাকে নিয়ে পাঁচ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়েও ক্যানসার আক্রান্ত মায়ের করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নমুনা দিতে ব্যর্থ হওয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে মারধর করেন সেখানে দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা। এ ঘটনার ছবি তুলতে গেলে দুই আলোকচিত্র সাংবাদিকের ওপরও হামলা করেন তারা।