আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষরিত চিঠিতে আওয়ামী লীগ এর সাংস্কৃতি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য মনোনীত করায় সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও ভিনিউজ সম্পাদক জয়ন্ত আচার্য কে বাংলাদেশ মিডিয়াগাইড এর প্রকাশক মোঃ রাকিবুল হাসান – বাংলাদেশ মিডিয়াগাইড ও মিডিয়াগাইডের সকল সদস্য, ৮০০০ অনলাইন নিউজ পোর্টাল, টিভি ও প্রিন্ট পত্রিকার এর পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, জয়ন্ত আচার্য (দাদা) বাংলাদেশ মিডিয়াগাইড প্রতিষ্ঠায় অফুরন্ত সময় দিয়েছেন। বাংলাদেশের অনলাইন নিউজপোর্টাল গুলোকে নিবন্ধনের আওতায় নিতে সরকারের সঙ্গে শুরু থেকেই কাজ করে যাচ্ছেন। নিবন্ধনের ফি সর্বনিম্ন রাখা, বিভিন্ন শর্ত সহজীকরণ সহ অনলাইন পোর্টালের মালিকদের সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা প্রদানের লক্ষ্যে সরকারের কাছে শুরু থেকেই বিভিন্ন দাবি পেশ করে আসছেন। যার সুফল অনলাইন পোর্টাল মালিকগণ ইতোমধ্যেই নিবন্ধেনের মধ্য দিয়ে পেতে শুরু করেছেন।

উল্লেখ্য, তিনি দেশের বিশিষ্ট সাংবাদিক ও গবেষক। শিক্ষা গ্রহণ করেছেন গোপালগঞ্জের এস এম মডেল স্কুলে এবং বঙ্গবন্ধু মহাবিদ্যালয়ে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র থাকাকালীন ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী হিসাবে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের নেতৃত্বে গড়ে ওঠা গোলাম আযমের নাগরিকত্ব বাতিল সহ সকল প্রগতিশীল আন্দোলনে সক্রিয় ভাবে অংশ নেন।
জয়ন্ত আচার্য দৈনিক লাল সবুজ ও দৈনিক বাংলা থেকে প্রকাশিত বিচিত্রা পত্রিকায় কাজ করার মধ্য দিয়ে তার সাংবাদিকতার পথ চলা শুরু করেন। পরে তিনি দৈনিক প্রভাত, সাপ্তাহিক ২০০০, ভোরের কাগজ, বিডি নিউজ, একাত্তর পত্রিকার প্রতিবেদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বর্তমানে তিনি অনলাইন নিউজপোর্টাল ও বার্তা সংস্থা ভিনিউজের সম্পাদক। একই সঙ্গে তিনি বাংলাদেশ অনলাইন মিডিয়া এসোসিয়েশনের সভাপতি, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম ঐক্যমঞ্চের আহ্বায়ক। জয়ন্ত আচার্য দেশের নির্বাচন ও উন্নয়ন কার্যক্রমের উপর গবেষণা প্রতিষ্ঠান বিইডিএসএস এর সমন্বয়ক। ফাউন্ডেশন ফর রিজিওন্যাল স্টাডিসের অর্থ বিষয়ক পরিচালক। জাতীয় সম্প্রচার ও কমিশন গঠন নীতিমালা কমিটির সদস্য হিসেবে অবদান রেখেছেন জয়ন্ত আচার্য।

জয়ন্ত আচার্যের সম্পাদনায় ইতিমধ্যে ছয়টি বই প্রকাশিত হয়েছে: অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার ওপর তার আলোচিত গ্রন্থ ‘দৃষ্টির অন্তরালে’ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠ্যসূচিতে অর্ন্তভুক্ত হয়। তার প্রকাশিত গবেষণা গ্রন্থ হলো : আদিবাসী জনপথের পথে প্রান্তে, গাজীপুরের আদিবাসীদের কথা, মুক্তিযুদ্ধে দিনাজপুর, মহাজোট সরকারের উন্নয়ন। মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষক এ এস এম সামছুল আরেফিনের সম্পাদিত মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের ভূমিকা ও বাংলাদেশের নির্বাচন ৭০ থেকে ২০০৮ গ্রন্থের গবেষণা সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করেন জয়ন্ত আচার্য। ৭১ এর ২৫ মার্চের কালো রাতের উপর নির্মিত কাওসার চৌধুরির সিনেমা ‘সেই রাতের কথা বলতে এসেছি’র সহকারী প্রযোজক হিসাবেও কাজ করেছেন তিনি।

জয়ন্ত আচার্য মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে একটি অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক উন্নত বাংলাদেশ বির্নিমাণের স্বপ্ন দেখেন। সেই লক্ষ্যেই তার নিরন্তর পথ চলা।
সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও ভিনিউজ সম্পাদক জয়ন্ত আচার্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংস্কৃতিক বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের বিভিন্ন সংগঠন বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, সমাজের বিভিন্ন সুধীজন তাকে অভিনন্দন জানিয়েছে। আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম মঞ্চ, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ জয়বাংলা সাংবাদিক মঞ্চ আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান।, জয় বাংলা সুধী সমাজের বিভিন্ন ব্যক্তি তাকে ফোন করে অভিনন্দন জানিয়েছে সাংবাদিক মঞ্চ, সুধী সমাজের বিভিন্ন গুণীজন তাকে ফোন করে অভিনন্দন জানিয়েছেন আওয়ামি প্রজন্ম লীগ ও প্রজন্ম ৭১,বঙ্গবন্ধু দুস্থ কল্যাণ সংস্থা । পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদ সহ বিভিন্ন সংগঠন।

ডিসেম্বরে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষরিত সাংস্কৃতিক উপ কমিটি ঘোষণা করা হয়।

আভিনন্দন জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
জয়ন্ত আচার্য সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে।