সিলেটে এনএসআই-এর কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার পরিকল্পনাকারী এক চিকিৎসক ও তার সহযোগীকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার (১০ জুলাই) রাতে প্রতারণার অভিযোগে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটক সিলেটের শিবগঞ্জের বাসিন্দা ডা. মুহিবুর রহমান রুবেল ৩৯তম বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডারের কর্মকর্তা। জৈন্তাপুরের চারিখাটা ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনি কর্মরত আছেন বলে নিশ্চিত করেছেন জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আমিনুল হক সরকার।

তিনি জানান, গত জানুয়ারিতে ৩৯তম বিসিএসের মাধ্যমে চাকরিতে যোগদান করেন ডা. মুহিবুর রহমান রুবেল। পারিবারিকভাবে স্বচ্ছল রুবেল কোনো প্রতারণার সঙ্গে জড়াতে পারেন তা তিনি বিশ্বাস করতে পারছেন না।

পুলিশের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, আম্বরখানার কোনো এক ফার্মেসিতে প্রতারণার অভিযোগে শুক্রবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে সিলেট কোতোয়ালী মডেল থানা থেকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, ডা. মুহিবুর রহমান রুবেল নগরের আম্বরখানা এলাকার ইলেকট্রিক সাপ্লাই রোডের ওসমান ফার্মেসিতে এসে নিজেকে জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআই’র বড় কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে ফার্মেসির মালিককে বলেন, তার ফার্মেসির লাইসেন্সের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। তিন লাখ টাকা না দিলে তিনি ফার্মেসি সিলগালা করে দেবেন। কথামতো শুক্রবার রাতে ওই ফার্মেসি থেকে টাকা আনার জন্য ডা. রুবেল তার সহযোগী শাহপরাণ থানা এলাকার শাহেদ আহমদকে পাঠান। তখন ফার্মেসির মালিক শাহেদ আহমদকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাকে আটক করে এবং তার দেয়া তথ্য মতে ডা. রুবেলের শিবগঞ্জের বাসায় অভিযান চালায়।

পুলিশ বাসায় গেলে ডা. রুবেল নিজেকে এনএসআই’র বড় কর্মকর্তা হিসেবে পরিচয় দেন এবং পুলিশের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। পরে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে গেলে তিনি প্রতারণার বিষয়টি স্বীকার করেন।

কোতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ সেলিম মিঞা প্রতারণার অভিযোগে রুবেল নামে একজনকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।