ইমরান আল মাহমুদ ::

উখিয়া উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নের চার ইউনিয়নের সংযোগস্থল কোর্টবাজার স্টেশন। তাছাড়া পাশ্ববর্তী টেকনাফ উপজেলার শামলাপুর ও নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার কিছু স্থান থেকেও জনসাধারণ কোর্টবাজার স্টেশনে বিভিন্ন প্রয়োজনে চলাচল করে। ফলে ব্যস্তময় স্টেশনে পরিণত হয়েছে কোর্টবাজার।তবে বিভিন্ন সময় তীব্র যানজটের কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হতো জনসাধারণের। রাস্তা প্রশস্তকরণের কারণে যানজট কিছুটা নিরসন হলেও রাস্তার উপর দেখা যায় যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং।

মঙ্গলবার উখিয়ার কোর্টবাজার স্টেশনে সরেজমিন দেখা যায়,করোনা ভাইরাসজনিত কারণে দীর্ঘদিন পর লকডাউন খোলার ঘোষণার পর বেড়েছে যানবাহন চলাচল। বাজারগুলোতেও জনসাধারণের পর্যাপ্ত ভিড় লক্ষ্য করা যায়। উপজেলা প্রশাসন তৎপর থাকলেও যেনো লুকোচুরি খেলছে অনেকেই। যাত্রী পরিবহণেও দেখা যায় ভিন্নতা। যাত্রী পরিবহণে উপজেলা প্রশাসনের করে দেওয়া নিয়ম না মেনে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করে দ্বিগুণ ভাড়া আদায় করছেন ড্রাইভাররা।

অন্যদিকে যত্রতত্র রাস্তার উপর গাড়ি পার্কিংয়ের কারণে গাড়ির জটলা লেগেই থাকে। যানজট নিরসনে ট্রাফিক বিভাগের কর্মরত পুলিশ সদস্যরাও চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। অদক্ষ, লাইসেন্সবিহীন ড্রাইভার ও যত্রতত্র গাড়ি পার্কিংয়ের ফলে জনসাধারণের চলাচলের নিরাপদ পাশটি গাড়ি পার্কিংয়ে দখলে নিয়েছে ড্রাইভাররা।ফলে স্টেশন থেকে নিরাপদ দূরত্বে আলাদা পার্কিং স্থান নির্ধারণের দাবি জানান সচেতন মহল।