হেফাজতে ইসলামের আমির ও চট্টগ্রামের হাটহাজারী দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার সদ্যবিদয়ী মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি…রাজিজউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।

বৃহস্পতিবার রাতে হাটহাজারী মাদ্রাসায় অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  অবস্থার অবনতি হলে সেখান থেকে শুক্রবার রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এ বর্ষিয়ান ইসলামী নেতাকে।

শুক্রবার বিকেলে তার মৃত্যু হয় বলে ড্যাবের সাবেক মহাসচিব ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন ওই হাসপাতালের চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে নিশ্চিত করেন।

এ ছাড়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা মোজাম্মেল হকও  তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

আল্লামা আহমদ শফী চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থানাধীন পাখিয়ারটিলা নামক গ্রামের সম্ভ্রান্ত ও ঐতিহ্যবাহী আলেম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা মো. বরকত আলী, মা মেহেরুন্নেছা বেগম।

আল্লামা শফীর নিয়মিত শিক্ষাজীবন শেষ হয় ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দে শিক্ষাগ্রহণের মাধ্যমে। এখান থেকেই তিনি মাওলানা সনদ লাভ করেন। দেওবন্দে অধ্যয়নরত অবস্থায় আহমদ শফী শায়খুল ইসলাম হজরত হোসাইন আহমদ মাদানির হাতে বায়াত গ্রহণ করেন। তিনি উপমহাদেশে খ্যাতিমান ইসলামি আইন বিশারদ মুফতি ফয়জুল্লাহ, শায়খুল হাদিস আল্লামা সুফি আবদুল কাইউম, শায়খুল আদিব আল্লামা মুহাম্মদ আলী নিজামপুরী ও শায়খ আল্লামা আবুল হাসান রহমাতুল্লাহি আলাইহি প্রমুখের কাছে বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষা অর্জন করেন।

অত্যন্ত নম্র, ভদ্র, বিনয়ী, চিন্তাশীল, মেধাবী ও সুবুদ্ধির অধিকারী হওয়ায় আল্লামা শফী তার উস্তাদদের বিশেষ নজরে থেকে শিক্ষাজীবন কৃতিত্বের সঙ্গে শেষ করেন।